সুনামগঞ্জে মানসিক ভারসাম্যহীনদের মধ্যে খাবার তুলে দিলেন জেলা প্রশাসক আব্দুল আহাদ

প্রকাশিত: ১২:০৪ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ৪, ২০২০

সুনামগঞ্জ  সংবাদদাতা::
করোনা ভাইরাস আগ্রাসন শুরু হওয়ার পর থেকে সুনামগঞ্জ শহরের অসহায় শারীরিক ও মানসিক প্রতিবন্ধীদের মধ্যে প্রতিদিন কয়েকজন তরুণ রান্না করা খাবার নিয়ে বের হন পৌর শহরে। বিভিন্ন স্থানে রাস্তার পাশে,যাত্রী ছাউনি, পরিত্যক্ত ভবনের বারান্দা, মার্কেটের খালি জায়গা ও খোলা আকাশের নিচে থাকা শারীরিক ও মানসিক প্রতিবন্ধীদের হাতে নিয়মিতভাবেই তারা তুলে দেন খাবার। করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে গত তিন মাস যাবৎ একবেলা খাবার বিতরণ করছেন তারা।
শুক্রবার ১০০তম দিনে মানবতাবাদী এই তরুনদের উদ্যোগকে উৎসাহ যুগিয়ে মানসিক ভারসাম্যহীনদের মাঝে খাবার বিতরণকালে উপস্থিত ছিলেন সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ। খাবার বিতরণের মানবিক কাজের সমন্বয়কারী মধ্যবাজার এলাকার জগন্নাথ বণিক, উত্তর আরপিননগরের বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান রুহেল আহমদ, হাফিজুর রহমান,মধ্যবাজার এলাকার চন্দন রায়, দেবব্রত, জনি বণিক, সুজিত বণিক, নারু বণিক, জুটন বণিক, রামু বণিক, রুমন বণিকসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন। বিরতণের একশত দিন উপলক্ষে একবেলার দুপুরের খাবার ও পানির সাথে ১০০ জন মানুষের মধ্যে একশতটি মাস্ক বিরতণ করা হয়। উল্লেখ্য, জেলা প্রশাসক বর্ণিত উদ্যোক্তাদের ১ (এক) মে. টন চাল বরাদ্দ প্রদান করেন মানবিক কর্মসূচিটি চালিয়ে নেওয়ার জন্য। আরো জানা যায়,শহরের উক্ত অসহায় শারীরিক ও মানসিক প্রতিবন্ধীদের মধ্যে সর্বপ্রথম খাবার বিতরন করেন শহরের তেঘরিয়া নিবাসী ওয়ালটন সরবরাহ কোম্পানীর অফিস সহায়ক মানবতাবাদী লাল মিয়া,আরপিননগর নিবাসী শফিকুল ইসলাম ফরহাদ ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ফজলে রাব্বী স্মরণ। তারা নিজ নিজ উদ্যোগে এর আগে শহরের খাবার বঞ্চিত ভারসাম্যহীন লোকদের মধ্যে নিজেদের মা-স্ত্রী ও বোনের হাতের রান্না করা খাবার, মশারী, মোমবাতি, দিয়াশলাই ও বস্ত্র বিতরন অব্যাহত রাখেন।