ইউএনওর হামলাকারী কারা, দ্রুত জানা যাবে : প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত: ৭:০১ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩, ২০২০

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ওয়াহিদা খানমের ওপর কারা হামলা চালিয়েছে, তা খুব দ্রুত জানা যাবে বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। আজ বৃহস্পতিবার মন্ত্রণালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

ইউএনওর বাসায় সিসি ক্যামেরা রয়েছে জানিয়ে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘যে দুজন দুর্বৃত্ত…তাদের মুখে মুখোশ ছিল। সেগুলো দেখে পর্যালোচনা চলছে, ওখানে পুলিশের চৌকশ একটি টিম কাজ করছে। তারা আশাবাদী যে, খুব দ্রুত আমাদের জানাতে পারবেন, কারা এই ঘটনাটা ঘটিয়েছে। আমরা অপেক্ষা করছি।’

এক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘পারিবাহিক শত্রুতা মনে হচ্ছে না, তবে তদন্তে বেরিয়ে আসবে। আমরা জিজ্ঞেস করেছি, কোনোকিছু খোয়া গেছে কি না, এখনো জানা যাচ্ছে না। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বিষয়টি চুলচেরা বিশ্লেষণ করছে।’

ফরহাদ হোসেন বলেন, ‘বিষয়টি কী হয়েছে এবং এই দুর্বৃত্তরা কারা, সে বিষয়ে এসপি বললেন, “একটু সময় পেলে দুর্বৃত্তদের নাম-ঠিকানাসহ সব কিছু বের করতে পারব, আমাদের প্রচেষ্টা আছে”। আমরা আশাবাদী খুব দ্রুত এটা বের করতে পারব।’

ইউএনওকে কীভাবে হামলা করা হলো, সে বিষয়ে জানাতে গিয়ে দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক মাহমুদুল আলম জানান, গতকাল বুধবার রাত ৩টার দিকে ঘরের ভেন্টিলেটর দিয়ে এক যুবক প্রবেশ করে। প্রথমে ওই যুবক ইউএনও ওয়াহিদা খানমের বাবা ওমর আলীকে আহত করে পাশের ঘরে আটকে রাখে। পরে ওয়াহিদা খানমের ওপর হামলা চালায়। এলোপাতাড়িভাবে তাকেও কুপিয়ে পালিয়ে যায়। তাকে হত্যার উদ্দেশ্যেই এ হামলা চালানো হয়েছে বলে ধারণা জেলা প্রশাসকের।

আহত ওয়াহিদা খানমকে প্রথমে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে তাকে এয়ার অ্যাস্বুলেন্সে করে ঢাকার আনা হয়েছে। ওয়াহিদার বাবাকে ঘোড়াঘাট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

ওয়াহিদার বাবা নওগাঁ জেলার বাসিন্দা। মাঝে মাঝে মেয়ের বাসায় বেড়াতে আসেন এই মুক্তিযোদ্ধা। ইউএনও ওয়াহিদার স্বামী রংপুরের পীরগঞ্জে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত আছেন।