লন্ডন ০৮:২৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দিরাইয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধসহ আহত ৩০

  • কালনী ভিউ
  • প্রকাশের সময়: ০৭:০৫:২৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর ২০২৩
  • ৫৩৪

সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধসহ ৩০ জন আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার (২৪ অক্টোবর) উপজেলার কুলঞ্জ ইউনিয়নের রাড়ইল গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

রাড়ইল গ্রামের আজাদ চৌধুরী ও নুনু চৌধুরীর লোকজনের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনাটি ঘটে। সংঘর্ষে আহতদের মধ্যে ২৩ জনকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

সংঘর্ষে গ্রামের ইমতাজ মিয়ার ছেলে নুনু মিয়া (৬৫), আনু মিয়ার ছেলে অমিত হাসান (১৬), আনফর মিয়ার ছেলে আবুল কালাম চৌধুরী (৬৪), লাল মিয়ার ছেলে মুরশাদ (২৮) ও ফরসাদ মিয়া (২২), মজুমদার চৌধুরীর ছেলে রবিউল ইসলাম (২৫), আব্দুল হেকিমের ছেলে মনু মিয়া (৪০) ও রাজিব মিয়া (২৫), হেফাজুর মিয়ার ছেলে তানভীর মিয়া (২১), সুলতান মিয়ার ছেলে মাহিদ মিয়া (১৯) ও সুজন মিয়া (৩২), গৌছ মিয়ার ছেলে অলিউর রহমান (৩০), শওকত মিয়ার ছেলে রাবেল মিয়া (২৫), নুনু মিয়া চৌধুরীর ছেলে তানিম আহমদ চৌধুরী (২২) ও তাজিম আহমদ চৌধুরী (২১), মদরিছ মিয়ার ছেলে গৌছ মিয়া (৭০), আব্দুল হেকিম মিয়ার ছেলে নানু মিয়া (৩৭), নূরুল ইসলামের ছেলে সাজ্জুল মিয়া (৪২), রেজা চৌধুরী (১৭), মুহিবুর রহমান (২২), হুমায়ুন আহমদ (৬০), বশির মিয়ার ছেলে বদরুল মিয়া চৌধুরী (২৭) ও শালিস ব্যক্তি টংগর গ্রামের মারফত আলীর ছেলে আব্দুন নূর মিয়া (৫২) সহ অনেকেই আহত হন।

সংঘর্ষের সত্যতা নিশ্চিত করে দিরাই থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কাজী মোক্তাদির হোসেন জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তপূর্বক আইনানুগব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। বর্তমানে গ্রামের পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

ট্যাগ:
লেখক সম্পর্কে

জনপ্রিয়

দিরাইয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধসহ আহত ৩০

প্রকাশের সময়: ০৭:০৫:২৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর ২০২৩

সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধসহ ৩০ জন আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার (২৪ অক্টোবর) উপজেলার কুলঞ্জ ইউনিয়নের রাড়ইল গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

রাড়ইল গ্রামের আজাদ চৌধুরী ও নুনু চৌধুরীর লোকজনের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনাটি ঘটে। সংঘর্ষে আহতদের মধ্যে ২৩ জনকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

সংঘর্ষে গ্রামের ইমতাজ মিয়ার ছেলে নুনু মিয়া (৬৫), আনু মিয়ার ছেলে অমিত হাসান (১৬), আনফর মিয়ার ছেলে আবুল কালাম চৌধুরী (৬৪), লাল মিয়ার ছেলে মুরশাদ (২৮) ও ফরসাদ মিয়া (২২), মজুমদার চৌধুরীর ছেলে রবিউল ইসলাম (২৫), আব্দুল হেকিমের ছেলে মনু মিয়া (৪০) ও রাজিব মিয়া (২৫), হেফাজুর মিয়ার ছেলে তানভীর মিয়া (২১), সুলতান মিয়ার ছেলে মাহিদ মিয়া (১৯) ও সুজন মিয়া (৩২), গৌছ মিয়ার ছেলে অলিউর রহমান (৩০), শওকত মিয়ার ছেলে রাবেল মিয়া (২৫), নুনু মিয়া চৌধুরীর ছেলে তানিম আহমদ চৌধুরী (২২) ও তাজিম আহমদ চৌধুরী (২১), মদরিছ মিয়ার ছেলে গৌছ মিয়া (৭০), আব্দুল হেকিম মিয়ার ছেলে নানু মিয়া (৩৭), নূরুল ইসলামের ছেলে সাজ্জুল মিয়া (৪২), রেজা চৌধুরী (১৭), মুহিবুর রহমান (২২), হুমায়ুন আহমদ (৬০), বশির মিয়ার ছেলে বদরুল মিয়া চৌধুরী (২৭) ও শালিস ব্যক্তি টংগর গ্রামের মারফত আলীর ছেলে আব্দুন নূর মিয়া (৫২) সহ অনেকেই আহত হন।

সংঘর্ষের সত্যতা নিশ্চিত করে দিরাই থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কাজী মোক্তাদির হোসেন জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তপূর্বক আইনানুগব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। বর্তমানে গ্রামের পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।