লন্ডন ০২:২২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

টানা বৃষ্টি আর পাহাড়ি ঢলে প্লাবিত নিম্নাঞ্চল: সুনামগঞ্জে স্বল্প মেয়াদি বন্যার আশংকা

টানা বৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে বাড়ছে সুনামগঞ্জের সুরমা, যাদুকাটা, কুশিয়ারা ও রক্তি নদীর পানি। এরই মধ্যে প্লাবিত হয়েছে পৌর শহরের নিম্নাঞ্চলের পাঁচ উপজেলার রাস্তাঘাট। ভোগান্তিতে পড়েছেন ওই সব এলাকার ছয় লাখেরও বেশি মানুষ। একই সঙ্গে পানি বাড়তে থাকায় বন্যা আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে ভাটির জেলার ২০ লাখেরও বেশি মানুষ।জানা যায়, টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে বেড়েই চলেছে সুনামগঞ্জের নদ-নদীর পানি।

জেলার তাহিরপুর, বিশ্বম্ভরপুর, ছাতক, দোয়ারা বাজার, মধ্যনগরসহ বেশ কয়েকটি উপজেলার নিম্নাঞ্চলে পানি ডুকে প্লাবিত হয়েছে রাস্তাঘাট। এমনকি ঢলের পানিতে বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার দুর্গাপুর সড়ক তলিয়ে গিয়ে সুনামগঞ্জ জেলার সঙ্গে তাহিরপুর উপজেলার সরাসরি সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। ফলে ভোগান্তিতে পড়েছেন ওই এলাকার বাসিন্দারা। বন্যা আতঙ্কে অনেকেই বসত ভিটার গুরুত্বপূর্ণ আসবাবপত্র নৌকা দিয়ে উঁচু স্থানে নিয়ে যাচ্ছেন। এদিকে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে সুনামগঞ্জ পৌর শহরের নিচু এলাকার তেঘরিয়া, আরপিননগর, কাজীর পয়েন্ট, পশ্চিম হাজীপাড়া ও নবীনগরে রাস্তাঘাট পানিতে তলিয়ে গেছে।

সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মামুন হাওলাদার বলেন, বৃষ্টিপাত ও উজানের ঢল অব্যাহত থাকলে সুনামগঞ্জের সকল নদ-নদীর পানি বিপদসীমা অতিক্রম করবে এবং সুনামগঞ্জে স্বল্প মেয়াদি বন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টি হবে।

ট্যাগ:
লেখক সম্পর্কে

জনপ্রিয়

টানা বৃষ্টি আর পাহাড়ি ঢলে প্লাবিত নিম্নাঞ্চল: সুনামগঞ্জে স্বল্প মেয়াদি বন্যার আশংকা

প্রকাশের সময়: ০৮:০২:৫৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ২ জুলাই ২০২৩

টানা বৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে বাড়ছে সুনামগঞ্জের সুরমা, যাদুকাটা, কুশিয়ারা ও রক্তি নদীর পানি। এরই মধ্যে প্লাবিত হয়েছে পৌর শহরের নিম্নাঞ্চলের পাঁচ উপজেলার রাস্তাঘাট। ভোগান্তিতে পড়েছেন ওই সব এলাকার ছয় লাখেরও বেশি মানুষ। একই সঙ্গে পানি বাড়তে থাকায় বন্যা আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে ভাটির জেলার ২০ লাখেরও বেশি মানুষ।জানা যায়, টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে বেড়েই চলেছে সুনামগঞ্জের নদ-নদীর পানি।

জেলার তাহিরপুর, বিশ্বম্ভরপুর, ছাতক, দোয়ারা বাজার, মধ্যনগরসহ বেশ কয়েকটি উপজেলার নিম্নাঞ্চলে পানি ডুকে প্লাবিত হয়েছে রাস্তাঘাট। এমনকি ঢলের পানিতে বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার দুর্গাপুর সড়ক তলিয়ে গিয়ে সুনামগঞ্জ জেলার সঙ্গে তাহিরপুর উপজেলার সরাসরি সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। ফলে ভোগান্তিতে পড়েছেন ওই এলাকার বাসিন্দারা। বন্যা আতঙ্কে অনেকেই বসত ভিটার গুরুত্বপূর্ণ আসবাবপত্র নৌকা দিয়ে উঁচু স্থানে নিয়ে যাচ্ছেন। এদিকে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে সুনামগঞ্জ পৌর শহরের নিচু এলাকার তেঘরিয়া, আরপিননগর, কাজীর পয়েন্ট, পশ্চিম হাজীপাড়া ও নবীনগরে রাস্তাঘাট পানিতে তলিয়ে গেছে।

সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মামুন হাওলাদার বলেন, বৃষ্টিপাত ও উজানের ঢল অব্যাহত থাকলে সুনামগঞ্জের সকল নদ-নদীর পানি বিপদসীমা অতিক্রম করবে এবং সুনামগঞ্জে স্বল্প মেয়াদি বন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টি হবে।