লন্ডন ০৭:৪৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দিরাইয়ে ঝুঁকিপূর্ণ লাকড়ির মিলে বিদ্যুৎ পৃষ্ঠ হয়ে শ্রমিকের মৃত্যু

  • কালনী ভিউ
  • প্রকাশের সময়: ০১:৪২:৫৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৭ জুলাই ২০২৩
  • ৫৫৪

দিরাইয়ে ঝুঁকিপূর্ণ লাকড়ির মিলে কাজ করতে গিয়ে বিদ্যুৎ পৃষ্ঠ হয়ে আতিকুল মিয়া(২৫) নামের এক মিল শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে।

শুক্রবার ভোরে উপজেলার ভাটিপাড়া এলাকার জমির হোসেনের মালিকানাধীন বিদ্যুৎ চালিত লাকড়ির মিলে এ ঘটনাটি ঘটে।

নিহত আতিকুল ভাটিপাড়া গ্রামের আব্দুর রাজিক’র ছেলে।

জানা যায়, শুক্রবার ভোরে হঠাৎ মিলের ভিতরে বিকট শব্দ শুনতে পান প্রতিবেশীরা। পরে মিলের মালিককে খবর দিলে তিনি এসে আতিকুলকে বিদ্যুৎ চালিত অরক্ষিত মোটরের পাশে পড়ে থাকতে দেখে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেন। এভাবে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় লাকড়ির মিল পরিচালনা করায় স্থানীয়রা ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

দিরাই থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কাজী মোক্তাদির হোসেন বিদ্যুৎ পৃষ্ঠে মৃত্যু হওয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশের সুরতহাল রিপোর্ট প্রস্তুত করেছে, লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হবে। অভিযোগ পেলে তদন্তপূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ট্যাগ:
লেখক সম্পর্কে

জনপ্রিয়

দিরাইয়ে ঝুঁকিপূর্ণ লাকড়ির মিলে বিদ্যুৎ পৃষ্ঠ হয়ে শ্রমিকের মৃত্যু

প্রকাশের সময়: ০১:৪২:৫৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৭ জুলাই ২০২৩

দিরাইয়ে ঝুঁকিপূর্ণ লাকড়ির মিলে কাজ করতে গিয়ে বিদ্যুৎ পৃষ্ঠ হয়ে আতিকুল মিয়া(২৫) নামের এক মিল শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে।

শুক্রবার ভোরে উপজেলার ভাটিপাড়া এলাকার জমির হোসেনের মালিকানাধীন বিদ্যুৎ চালিত লাকড়ির মিলে এ ঘটনাটি ঘটে।

নিহত আতিকুল ভাটিপাড়া গ্রামের আব্দুর রাজিক’র ছেলে।

জানা যায়, শুক্রবার ভোরে হঠাৎ মিলের ভিতরে বিকট শব্দ শুনতে পান প্রতিবেশীরা। পরে মিলের মালিককে খবর দিলে তিনি এসে আতিকুলকে বিদ্যুৎ চালিত অরক্ষিত মোটরের পাশে পড়ে থাকতে দেখে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেন। এভাবে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় লাকড়ির মিল পরিচালনা করায় স্থানীয়রা ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

দিরাই থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কাজী মোক্তাদির হোসেন বিদ্যুৎ পৃষ্ঠে মৃত্যু হওয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশের সুরতহাল রিপোর্ট প্রস্তুত করেছে, লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হবে। অভিযোগ পেলে তদন্তপূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।